বিরানভূমিতে গাছ লাগাবে ড্রোন!

মানুষের ‘উন্নয়ন’ আর ‘আধুনিকতা’র ঠ্যালায় ক্রমশ বসবাস অযোগ্য হয়ে পড়ছে পৃথিবী। বৈশ্বিক তাপমাত্রা বাড়ছে, আর্কটিকের বরফ গলার ফলে বাড়ছে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতাও। এই সমস্ত কিছুর পেছনে সত্যিকার অর্থে দায়ী আমাদের নির্বিচার বৃক্ষ নিধন।

একটা জরিপে দেখা গেছে গোটা পৃথিবী জুড়ে প্রতি বছর প্রায় সাড়ে ছয় বিলিয়ন গাছ আমরা কেটে ফেলি, অন্যদিকে গাছ লাগানোর পরিমাণ তার অর্ধেকও হবে না। জাতিসংঘের তরফ থেকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে কিভাবে এই ‘গ্যাপ’টুকু পুষিয়ে নেয়া যায়। কিন্তু তাতে কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

লরেন ফ্লেচার, ড্রোন ব্যাবহার করে বনায়ন করার উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি
লরেন ফ্লেচার, ড্রোন ব্যাবহার করে বনায়ন করার উদ্যোগ নিয়েছেন এই ভদ্রলোক

লরেন ফ্লেচার নামের এক ভদ্রলোক মাথা খাটিয়ে এর একটা সমাধান বের করেছেন। সময় ও খরচ দুটোই বাঁচাতে নাসার প্রাক্তন এই ইঞ্জিনিয়ার ঠিক করেছেন তিনি পৃথিবী জুড়ে গাছ লাগাবেন ড্রোন এর মাধ্যমে। আর এই চিন্তা থেকে ২০১৪ সালে তিনি দাড় করিয়েছেন ‘বায়ো কার্বন ইঞ্জিনিয়ারিং’ নামের একটি সংস্থা।

 

গত কয়েক বছরের পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তারা দেখিয়েছেন তিন ধাপে কাজটা করা সম্ভব  –


জরিপ

প্রথমে দূর নিয়ন্ত্রিত ড্রোন উড়ে উড়ে বিভিন্ন জায়গার ভূমি জরিপ করে থ্রিডি ম্যাপ তৈরি করবে। যেটা দেখে বোঝা যাবে গাছ লাগানোর সম্ভাব্য উপযোগী জায়গাগুলো কোথায় কোথায় আছে।

রোপণ

এরপর উপযোগী জমিতে বিশেষ ভাবে ক্যাপসুল করা বীজ রোপণ করবে ড্রোনগুলো। কোথায় কোথায় গাছ লাগানো হচ্ছে তার লোকেশন গুলো ম্যাপে দেখা যাবে।

পরিচর্যা

ম্যাপ থেকে গাছগুলোর লোকেশন বের করে নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর তাদের পরিচর্যা করতে পাঠানো হবে ড্রোন। এভাবে দেখা হবে আসলেই বনায়নের এই প্রক্রিয়া ফলপ্রসূ হচ্ছে কিনা।

plan

খটমটে বৈজ্ঞানিক টার্ম আর থিওরির কচকচানি বাদ দিয়ে সহজ ভাষায় এটাই হচ্ছে তাদের মাস্টার প্ল্যান।


ফ্লেচার হিসেব করে দেখিয়েছেন এভাবে দৈনিক ৩৬০০০ গাছ লাগানো সম্ভব। আর তাতে খরচটা হবে প্রচলিত পদ্ধতিতে এই পরিমাণ গাছ লাগানোর মাত্র ১৫% খরচে। এর একটা বড় সুবিধা হচ্ছে গহীন বন অথবা দুর্গম কোনো জায়গা, যেখানে প্রাকৃতিক ভাবে বনায়ন হয়নি কোনো কারণে, সেখানেও ড্রোন পাঠিয়ে নির্ঝঞ্ঝাটে গাছ লাগানো সম্ভব হবে।

আমাদের সুন্দরবনের ভেতরেও তো চাইলে এভাবে সবুজের বিস্তার ঘটানো সম্ভব !

পুরো প্রক্রিয়াটা ব্যাখ্যা করে ইউটিউবে একটি ভিডিও ছেড়েছে বায়োকার্বন ইঞ্জিনিয়ারিং – যারা বিষয়টা নিয়ে আরেকটু ঘাটাঘাটি করতে চান তাদের জন্য সেই ভিডিওটা আর তাদের ওয়েবসাইটের ঠিকানা পোস্টের সাথে জুড়ে দিলাম।

 লিংক: বায়োকার্বন ইঞ্জিনিয়ারিং

Advertisements

5 comments

  1. স্যার আমি আসলে একটা ড্রোন বানাতে চাই কিন্তু সেটা কী ভাবে সম্ভব? এবং ড্রোন বানাতে কী কী উপকরন প্রয়োজন..?

    বিঃদ্র আমি খুব আগ্রহী

    • টেকটিউনস ব্লগে একটা বাংলা টিউটোরিয়াল আছে ড্রোন বানানোর উপরে। এখানে দেখুন

      আর একটা কথা, ড্রোন আকাশে উড়াতে হলে সরকারের লিখিত অনুমতি লাগে কিন্তু! অনুমতি ছাড়া খোলা আকাশে ড্রোন উড়াতে গেলে বিপদে পড়তে পারেন।

      কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ আপনাকে, ভালো থাকুন 🙂

  2. আমি আকাশে উড়ার মতো কিছু বানাতে চাই । কেউ পারলে কম দামের মধ্যে যদি বানানো সম্ভব হয় কেউ আমাকে সাহায্য করুন

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s