সংক্ষিপ্ত পোষ্ট বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে শ্লীলতাহানি এবং কিছু তিক্ত সত্য কথা

এই স্ট্যাটাসের প্রতিক্রিয়ায় ফেসবুক টুইটারে এমনভাবে ছি ছি করা হচ্ছে যেনো খুবই অপ্রত্যাশিত কিছু ঘটে গেছে। কিন্তু আমি এর মধ্যে নতুন কিছু খুজে পাচ্ছি না।

ইভটিজিং, শ্লীলতাহানি, ধর্ষন সহ যাবতীয় নারীঘটিত অপরাধের দায় শুধু পুরুষের একার না। নারীটি নিশ্চই কিছু দেখিয়েছিলো, প্রলুব্ধ করেছিলো। তার চরিত্রে নিশ্চই দোষ আছে। আর ওই সময় এভাবে শরীর দুলিয়ে বের হতে হবে কেন? বাসায় থেকে কি পহেলা বৈশাখ করা যায় না? এরকম বেলেল্লাপনা করে বেড়াতে হবে কেন? হিজাব-পর্দা করে কি রাস্তাঘাটে বের হওয়া যায় না?

ঠিক করেছে ইভটিজিং করে, শ্লীলতাহানি করে..ধর্ষন করে। এখন বোঝ কেন পর্দা করতে বলা হয়! বাসার বাইরে বের হতে নিষেধ করা হয়! বেগানা পুরুষদের সাথে মিশতে নিষেধ করা হয়!

– এইটা হলো আমাদের সমাজে নারী শাসনের পরোক্ষ মেকানিজম। দেশের সমস্ত আইন কানুন, সুশীল সমাজ, প্রগতিশীলতা..সমস্ত কিছু বিপরীতে গেলেও শুধুমাত্র এই চিন্তাটুকু লালন করে আমরা সফলভাবে তাদের ডোমিনেট করতে পারি।

এর ফলে নারীরা বুঝতে পারে যে, তারা বাসা থেকে বের হয়ে কোনো অপরাধের শিকার হলে কলঙ্কের ভার বইতে হবে। আমাদের ঠিক করে দেয়া পোষাক যদি সে না পরে যেকোনো পুরুষ তাকে যৌন হয়রানি বা ধর্ষন করেও অন্তত সামাজিকভাবে দায় এড়াতে পারে। কিছু মানুষ এভাবে ওই ধর্ষককে ডিফেন্ড করবেই, সেটাও আবার নৈতিকতার নামে!

আসি আরেক প্রসঙ্গে, একটা মানুষকে প্রকাশ্য রাস্তায় জবাই করা হয়েছে। একটা সভ্য সমাজে এর চেয়ে গর্হিত কাজ আর কি হতে পারে! কিন্তু আমরা সেই হত্যাকে বিচার করছি তার একটা ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে। সে ধর্মের বিরুদ্ধে কিছু লিখেছে তাই ধর্মভীরু কিছু মানুষ অনুভূতিতে আঘাত পেয়ে তাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

ঠিক করেছে কুপিয়ে! মনে আসলেই ধর্ম নিয়ে যা তা লিখতে হবে? – আবার আসি ডোমিনেট করার প্রসঙ্গে, ধর্ম নিয়ে যদি আপনি সমালোচনা করেন আপনি নিকৃষ্টতম অপরাধের শিকার হলেও আপনার ঘাতক সমাজের পরোক্ষ সহানুভূতি পাবে। আইন কানুনে যাই থাকুক, আর নীতিকথা যাই বলুক না কেন। সুতরাং ‘সমাজ’ এর সাথে নিজেকে মানিয়ে নিন, নিজের ভালো চাইলে। (কথার ভেতর হুমকীর সুরটা ধরতে পারছেন তো?)

আমাদের এই সমাজটা এভাবেই চলছে প্রায় হাজার বছর ধরে। বাইরের বাতাস লেগে মাঝে মাঝে আমাদের ‘সেক্যুলার’ হতে মন চায়, ‘লিবারেল’ হতে মন চায়, কিন্তু ভেতরে ভেতরে আমাদের একজনের সাথে আরেকজনের চিন্তাধারার খুব একটা পরিবর্তন কখনোই হয়নি। এবং সহসা হবে তার কোনো আলামতও দেখছি না।

Advertisements

2 comments

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s