উন্মোচিত হলো হাইড্রার অমরত্বের রহস্য

গ্রীক মিথলজির দৈত্য হাইড্রার একটা মাথা কাটলে সেখানে আরেকটি মাথা গজিয়ে উঠতো। নিজের শরীরের অঙ্গ গজিয়ে উঠানোর ক্ষমতা দেখে লিনিয়াস অতি ক্ষুদ্র এই জলজ প্রাণীটার নাম দিয়েছিলেন হাইড্রা।

স্কুল কলেজে জীববিজ্ঞান বইয়ের সাথে পরিচিত থাকলে এই প্রাণীটার ব্যাপারে আমরা কমবেশি অনেক কিছুই জানি। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে এদের একটা বড় বৈশিষ্ট্যের ব্যাপারে আমরা এতোদিন জানতাম না। সেটা হলো ০.৪ ইঞ্চি দৈর্ঘ্যের এই ছোট প্রাণী কখনো বুড়ো হয় না। মানে চারপাশের পরিবেশ পরিস্থিতি যদি অনুকূলে থাকে তাহলে তাদের পক্ষে অনন্তকাল বেঁচে থাকা সম্ভব।

কিন্তু এমন কেন হবে? অনুকূল পরিবেশ থাকুক বা না থাকুক
পৃথিবীর সমস্ত প্রাণীকেই তো বুড়ো হতে হয়, এক সময় তার মৃত্যু ঘটে। হাইড্রার ক্ষেত্রে এমন ব্যতিক্রম ঘটবে কেন? এই গবেষণা যিনি চালিয়েছেন, প্রফেসর মার্টিনেজের মতে, হাইড্রার শরীরে মূলত স্টেম সেলের দ্বারা গঠিত। এই স্টেম সেল নিজেরা বিভাজিত হয়ে প্রতিনিয়ত নতুন কোষ তৈরী করতে থাকে। ফলে নির্দিষ্ট সময় পর পর তার শরীর একেবারেই নতুন হয়ে যায়।

মজার ব্যাপার হচ্ছে ভদ্রলোক ১৯৯৮ সালে গবেষণা কাজ শুরু করেছিলেন এটা প্রমাণ করতে যে, অঙ্গ প্রতিস্থাপন ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও হাইড্রাকে একসময় স্বাভাবিক বার্ধক্যে উপনীত হতে হয়। কিন্তু গত প্রায় আট বছর ধরে ল্যাবরেটরীতে ২২৫৬টি হাইড্রাকে নিবীড় পর্যবেক্ষনের পর তিনি শেষে ঠিক বিপরীত সিদ্ধান্তে উপনীত হলেন।

তবু মৃত্যু তাড়া করে…

অনন্ত যৌবন থাকুক আর যাই থাকুক। মৃত্যু কিন্তু তারপরও পিছু ছাড়ে না হাইড্রাদের। আগে যা বলেছি, পরিবেশ অনুকূলে থাকতে হবে। সেটা সবসময় থাকে না। কখনো রোগে অথবা কখনো উপরের স্তরের প্রাণীদের খাদ্য হয়ে মৃত্যুর হিমশীতল স্পর্শ এদেরকে পেতেই হয় একটা সময়। এবং যে পরিবেশে তারা থাকে সেখানে অকালে প্রাণ হারানোর ঝুকি এতো বেশি যে অনন্ত যৌবন খুব একটা কাজে আসে না তাদের। (দুনিয়ার সবাই বুড়ো হয়ে মরবে আর কোথাকার কোন হাইড্রা অমর হয়ে পানিতে ভেসে থাকবে, তা কি আর হয় নাকি!)

খুলে গেলো নতুন দুয়ার?

এতোদিন পর্যন্ত কিন্তু একটা ধারণা ছিলো বিজ্ঞানীদের মধ্যে যে বার্ধক্য প্রাণীজগতের একটা স্বাভাবিক পরিণতি। কিন্তু মার্টিনেজের এই গবেষণা অন্তত একটি ব্যাতিক্রম দাড় করালো গবেষকদের সামনে। একদিন হয়ত এই গবেষনার সূত্র ধরেই উন্মোচিত হবে অনন্ত যৌবন লাভের পথ (হেইল হাইড্রা!) অথবা অঙ্গ প্রতিস্থাপনের মতো যুগান্তকারী আবিষ্কার।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s